ব্যবসার প্রসার বাড়ানোর মূলমন্ত্র

ব্যবসায়ী মাত্রই ক্রমশ নিজের ব্যবসার বৃদ্ধি দেখতে চান। কোনো ব্যবসার উদ্যোগ নেয়ার পর থেকে সেটাকে দাঁড় করাতে উদ্যোক্তার অনেক পরিশ্রম আর সাধনার প্রয়োজন হয়। রাত-দিন হাড়ভাঙা খাটুনি, নিজের মেধার সর্বোচ্চ প্রয়োগ, দলগত চিন্তাভাবনা আর সব কিছুর সমন্বয়ের পর একটি সফল ব্যবসা গড়ে ওঠে। কিন্তু একবার ব্যবসা দাঁড়িয়ে গেলেই উদ্যোক্তার দায়িত্ব শেষ হয়ে যায়?

তেমনটা নয়। বরং দায়িত্ব তখন আরও বেড়ে যায় বৈকি। ব্যবসাটিকে টেকসই করার দায়িত্ব, সেটির প্রসার আরও বাড়ানোর দায়িত্ব তখন উদ্যোক্তার কাঁধে চলে আসে। আপনি যদি এমন সফল উদ্যোক্তা হয়ে থাকেন, তাহলে এই দায়িত্বগুলোর চাপ নিশ্চয়ই আপনিও এখন অনুভব করছেন।

কিন্তু চাপ নেয়ার প্রয়োজন নেই। ব্যবসার প্রসার বাড়িয়ে সেটিকে টেকসই করার জন্য পৃথিবীব্যাপী স্বীকৃত অনেকগুলো উপায় রয়েছে। অনেক ব্যবসায়ী এগুলোকে কাজে লাগিয়ে সফলও হয়েছেন। তাহলে আপনি পিছিয়ে থাকবেন কেন? দেখে নিন প্রসার বাড়িয়ে টেকসই ব্যবসা গড়ে তোলার উপায়গুলো।

ধীরে চলুন, কিন্তু দ্রুত গতির জন্যও প্রস্তুতি নিন

এই পরামর্শটি পরস্পরবিরোধী মনে হতে পারে। একটু গভীরে যাওয়া যাক। বর্তমান পরিবর্তনশীল বিশ্বে দ্রুততা যেন সফলতার সমার্থক হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে যত গতিশীল হতে, সে তত দ্রুত সফল হতে পারে, চারদিকে তারই জয়জয়কার। ব্যবসার ক্ষেত্রেও দ্রুত লাভ করা, ব্যবসার পরিধি বাড়ানোর প্রতিযোগিতা চলছে।

ধীরে অলে লক্ষ্যে অবিচল থাকুন; image source: proposify.com

এমন অবস্থায় ‘ধীরে চলো’ নীতি অবলম্বন করা কষ্টসাধ্য। কিন্তু টেকসই ব্যবসার জন্য এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাড়াহুড়া করে সিদ্ধান্ত না নিয়ে বরং বাজারকে ভালমত লক্ষ্য করার দিকে মনোযোগ দিতে হবে। বাজারের ভবিষ্যত চাহিদা কেমন হতে পারে, বর্তমান চাহিদাকে কীভাবে নিজের পক্ষে আনা যায় সেটা নিয়ে গবেষণা করতে হবে এবং সেভাবেই নিজের ব্যবসায়িক পরিকল্পনা সাজাতে হবে।

সর্বোপরি, কেবল লাভের নেশায় মত্ত হয়ে ব্যবসার পরিধি না বাড়িয়ে বাজার বিশ্লেষণ করে ধীরে-সুস্থে ব্যবসার পরিধি বাড়াতে হবে। কেবল বর্তমানের দিকে মনোযোগ না দিয়ে ভবিষ্যতে কোন পরিকল্পনাটি কাজে দিতে পারে সেটিও মাথায় রাখতে হবে, যেন উপযুক্ত সময় উপস্থিত হওয়ার পর সেই পরিকল্পনার সাহায্যে দ্রুততার সাথে ব্যবসায় মুনাফা অর্জন করা যায়।

দক্ষ মানুষের পেছনে বিনিয়োগ করুন

একজন উদ্যোক্তা কেবল একা একটি ব্যবসা পরিচালনা করেন না। তার সাথে আরও অনেকেই যুক্ত থাকেন। একটি ব্যবসা অনেক বড় একটি দলগত কাজ। এই দলের প্রতিটি সদস্যই ব্যবসাটিকে ভালোভাবে চালানোর জন্য ভূমিকা রাখেন। তাই আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করার জন্য কাদের পেছনে আপনি বিনিয়োগ করছেন তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

সফলভাবে ব্যবসার প্রসার ঘটানোর জন্য আপনাকে অবশ্যই দক্ষ এবং অভিজ্ঞ মানুষদের পেছনে বিনিয়োগ করতে হবে। আবার, কখনোবা তারুণ্যের মাঝে নতুন নতুন সৃষ্টিশীল পরিকল্পনা আসে। তাই অনভিজ্ঞ কিন্তু পরিশ্রমী জনবল নিয়োগের দিকেও আপনি নজর রাখতে পারেন।

কর্মী নিয়োগ করুন দক্ষতার ভিত্তিতে; image source: riterionb.com

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো, আপনার ব্যবসাটি যেদিকে প্রসারিত করতে চলেছেন সেই বিষয়ে দক্ষ জনবলের পেছনে বিনিয়োগ করা। অলটারনেটিভ ফিন্যান্সিং কোম্পানি ‘বিজফি’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য স্টিফেন সেইনবাম বলেন,

“যেদিকে আপনি আপনার ব্যবসাকে প্রসারিত করতে চান, সেই ক্ষেত্রটিতে দক্ষ জনবল আপনাকে নিয়োগ করতে হবে। যারা আপনার ব্যবসার প্রসারে কোনো ভূমিকাই রাখতে পারে না, এমন অদক্ষদের নিয়োগ দেয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।”

কেবল বর্তমান নয়, ভবিষ্যতের জন্যও পরিকল্পনা করুন

নোকিয়ার কথা মনে আছে? একসময়ের প্রবল পরাক্রমশালী মোবাইল ব্র্যান্ডটি কীভাবে যেন বর্তমানে হারিয়ে গেছে! এর পেছনে কারণ হিসেবে রয়েছে কেবল বর্তমান সর্বস্ব হয়ে পরিকল্পনা করা। অন্যান্য মোবাইল ফোন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো যখন নতুন নতুন ফিচার দিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে ব্যস্ত, নোকিয়া তখনও পড়ে ছিল তার মোবাইল ফোনের দীর্ঘস্থায়িত্ব নিয়ে। একটি মোবাইল বেশিদিন টেকার চেয়ে ক্রেতারা যে এখন বেশি ফিচার থাকাকে গুরুত্ব দিচ্ছে, এ ব্যাপারটি নোকিয়া ধরতেই পারেনি।

ভবিষ্যতের কথা ভেবে পরিকল্পনা সাজান; image source: medium.com

বর্তমান বিশ্বে সকল কিছুর ট্রেন্ড অতি দ্রুত পরিবর্তিত হচ্ছে। আপনাকেও এই পরিবর্তিত চাহিদার সাথে দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে। আজ যেটি ব্যাপক জনপ্রিয়, ট্রেন্ড পরিবর্তনের কারণে সেটি আগামীকাল তার আবেদন হারাতে পারে। এজন্য আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। ভবিষ্যতে কোন জিনিসটির চাহিদা কেমন হবে, কী ধরনের পরিবর্তন এনে ভবিষ্যতেও জনপ্রিয়তা বজায় রাখা যায় সেটাও পরিকল্পনা করে রাখতে হবে।

ব্যবসার প্রসারে পিছপা হওয়া যাবে না

অনেকে ব্যবসার প্রসার ঘটাতে চান ঠিকই, কিন্তু এজন্য ঝুঁকি নিতে চান না। ব্যবসার টেকসই প্রসারের জন্য উদ্যোক্তার ঝুঁকিকে নিজের প্রিয় বন্ধুর মতো মনে করা উচিত। অনেক সময়ই এমন হবে যখন ব্যবসার প্রসারের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে। নতুন পণ্য বাজারে পরিচয় করিয়ে দিতে যাচ্ছেন, কিন্তু ক্রেতাদের প্রতিক্রিয়া সম্বন্ধে আপনি অবহিত নন কিংবা কোনো ধারণাই রাখেন না।

এমতাবস্থায়, আপনার সিদ্ধান্ত থেকে আপনি যদি পিছিয়ে আসেন তাহলে কখনো আপনার ব্যবসার প্রসার ঘটবে না। নতুন আইডিয়াকে কাজে লাগানোর সাহস তাই আপনার মাঝে থাকতে হবে। তবেই আপনার ব্যবসার প্রসার ঘটানো এবং সেটা ধরে রাখা সম্ভব।

ব্র্যান্ড ভ্যালু বৃদ্ধিতে মনোযোগ দিন; image source: bluefountainmedia.com

ব্যবসার ব্র্যান্ড ভ্যালু গড়ে তুলুন

যেকোনো ব্যবসা প্রসারের ক্ষেত্রে ব্র্যান্ডিং অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন, মর্যাদাপূর্ণ ব্র্যান্ড ভ্যালু গড়ে তোলার দিকে মনোযোগ দিন। ব্র্যান্ড ভ্যালু যত বেশি হবে, ক্রেতাদের কাছে বিশ্বস্ততাও তত বাড়বে। এর ফলে স্বাভাবিকভাবেই আপনার ব্যবসার প্রসারও বাড়বে। ব্র্যান্ড ভ্যালুর প্রভাবও অনেক দীর্ঘস্থায়ী হয়। ক্রেতারা একবার আপনার পণ্যে সন্তুষ্ট হয়ে আপনাকে বিশ্বাস করতে শুরু করলে আপনার ব্যবসা টেকসই হতে বাধ্য।

ক্রেতাদের বিশ্বস্ততা অর্জনের জন্য আপনি ক্রেতা-কর্মীদের মাঝে যোগাযোগও বাড়াতে পারেন। কাস্টমার কেয়ার চালু করে ক্রেতাদের অভাব অভিযোগ আমলে নিতে পারেন। এভাবে আপনার ব্যবসা কেবল লাভবানই হবে না, অন্যান্য প্রতিযোগীদের ধরা ছোঁয়ার বাইরেও চলে যাবে।

Written by Sizan Ahmed

প্রাত্যহিক জীবনাচরণে যে পরিবর্তনগুলো ধনী হতে সাহায্য করবে

টাকার পরিমাণ দ্বিগুণ করার ৫টি সহজ উপায়