নতুন উদ্যোক্তাদের যে ভুলগুলো থেকে সাবধান হতে হবে

“মানুষ মাত্রই ভুল” কথাটি চিরন্তন সত্য হলেও এর মাঝে নিজের ভুলের জন্য কোনোরূপ দোহাই খুঁজে পাওয়া বড় রকমের ভুল। এতে করে ভুল থেকে শিক্ষা নেয়ার আগ্রহ কমে যায়, নিখুঁতভাবে কাজ করার প্রেরণা হারিয়ে যায়।

জীবনে চলার পথে নানারকম ভুলভ্রান্তি হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু, প্রতিনিয়ত নিজেকে এমনভাবে তৈরি করতে হবে যেন একটি ভুল থেকে আরো অনেকগুলো ভুলের শিক্ষা নিয়ে পরবর্তী ধাপে যাওয়া যায়। আর এ ব্যাপারটি সবচেয়ে বেশি প্রযোজ্য নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য। কেননা, তাদের ছোটোখাটো ভুলও যে মারাত্মক ফল বয়ে আনতে পারে।

অধিকাংশ নতুন উদ্যোক্তাই তাদের নতুন ব্যবসা বা স্টার্টআপের শুরুটা করেন অল্প পুঁজিতে। তাই শুরুতে তাদের অনেক কিছু হিসাব করে চলতে হয়। সামান্য ভুল হলেও যে পুরো পুঁজিটা হারানোর ভয় থাকে! নতুন উদ্যোক্তাদের এরকমই কিছু ভুল নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন, যে ভুলগুলো এড়িয়ে যেতে পারলে সাফল্য নিশ্চিত।

ঝুঁকি নিতে ভয় করবেন না

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তিটির নাম জেফ বেজোস, যিনি তার অনলাইন বই বিক্রয়ের সাইট আমাজন দিয়ে বিশ্ব মাত করে রেখেছেন। জেফ বেজোসের ক্যারিয়ারের সূচনা কিন্তু দারুণ ছিল। ওয়ালস্ট্রিটের নামীদামী প্রতিষ্ঠান ডিই শ অ্যান্ড কো’তে উচ্চ বেতনে চাকরি নিয়েই শুরু করেছিলেন কর্মজীবন। অথচ বছরখানেক পর ১৯৯৪ সালে আমাজন প্রতিষ্ঠার জন্য চাকরি ছেড়ে নিজের স্টার্টআপের কাজে লেগে পরেন। বাকীটা আজ গৌরবময় সাফল্যের ইতিহাস।

ঝুঁকি না নিলে সাফল্য আসবে না; Image Source: peru.com

জীবনে সাফল্যের সিঁড়িতে পদার্পন করতে হলে আমাদেরও জেফ বেজোসের মতো ঝুঁকি নেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে। বেজোসের স্থলে অধিকাংশই হয়তো ভালো বেতনে চাকরি পেয়ে বর্তে যেতেন। কিন্তু বেজোস সে চাকরি ছেড়ে সব হারানোর ঝুঁকি নিয়ে নতুন কিছু করতে সংকল্পবদ্ধ ছিলেন আর তাই করেও দেখাতে পেরেছেন।

সংগঠিত হোন

নতুন উদ্যোক্তারা সবচেয়ে বেশি যে সমস্যার মুখোমুখি হন সেটি হলো শৃঙ্খলা ঠিক রাখা। নতুন শুরু করায় অধিকাংশই নিজের ব্যবসায়িক কাজগুলো সংগঠিত রাখতে ব্যর্থ হন। আর ব্যবসা যত কম সংগঠিত হবে, তাতে ভুল হবার সম্ভাবনা তত বাড়বে।

কাজে কর্মে সুশৃঙ্খল হতে হবে; Image Source: jilleduffy.com

এজন্য, ব্যবসা শুরু করবার সময় বেশি তাড়াহুড়ো করা যাবে না। শুধু ব্যবসার শুরু নয়, শুরুর পর এটি কীভাবে চলবে, কেমন করে অগ্রসর হবে, সব ব্যাপারে পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা মাথায় নিয়ে তবেই কাজে নামতে হবে। ব্যবসা শুরুর পর কোনোভাবেই এলোমেলো হওয়া চলবে না।

বাজার সম্বন্ধে ভুল ধারণা থাকা চলবে না

নতুন ব্যবসা শুরুর প্রধান শর্তগুলোর একটি হলো বাজার সম্বন্ধে সম্যক ধারণা এবং সে ব্যবসাটি বাজারে কেমন করবে, প্রতিযোগিতা কেমন, ভবিষ্যৎ কেমন, এসব বিষয় যাচাই করে তবেই ব্যবসার শুরুর সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

আপনি যে ব্যবসাটি করতে চাচ্ছেন, সেটি যদি ইতোমধ্যে বাজারে অধিক পরিমাণে বিদ্যমান থাকে এবং প্রতিযোগিতা তুমুল হয়, তাহলে সে ব্যবসায় উন্নতি করার সম্ভাবনা কমই। আবার তুমুল প্রতিযোগিতার কোনো বাজারেও অধিক লাভবান হওয়া যেতে যদি সে বাজারটি উঠতি হয়। কখনোবা স্থানভেদের বাজারের চাহিদা ও সার্বিক অবস্থা পরিবর্তিত হয়। তাই, বাজার ও নিজের ব্যবসার সার্বিক অবস্থা নিয়ে যথেষ্ট গবেষণা করেই ব্যবসায় নামুন।

কর্মচারী নিয়োগে তাড়াহুড়ো করবেন না

নতুন একটি উদ্যোগকে সফল করার জন্য উদ্যোক্তারই সর্বোচ্চ পরিশ্রম করতে হবে। যদি আপনি এমনটি ভেবে থাকেন যে আপনি হবেন ব্যবসার মস্তিষ্ক আর কাজ করবে কেবল কর্মচারীরা, তাহলে আপনি ভুল পথে হাঁটছেন কোনো সন্দেহ নেই।

রয়েসয়ে নিয়োগ করুন কর্মচারী; Image Source: fotolia.com

হ্যাঁ, একটা সময় যখন আপনার উদ্যোগ সাফল্যের মুখ দেখতে শুরু করবে, তখন আপনার কাজ হবে কেবল সার্বিক তত্ত্বাবধান। কিন্তু শুরুতে সব কাজ আপনারই করতে হবে। কেননা, কর্মচারী আপনার মতো নিবেদিতপ্রাণ হয়ে কাজ করবে না। সেক্ষেত্রে শুরুর দিকে নিজেই সকল দায়িত্ব নিন, অতিরিক্ত সময় কাজ করুন। ব্যবসার গ্রাফ উর্ধ্বমুখী হতে শুরু করলে ধীরে ধীরে কর্মচারী নিয়োগ দিতে শুরু করুন।

দ্রুত লাভের চিন্তা পরিহার করুন

মনে রাখতে হবে, ব্যবসা সাময়িক লাভের বিষয় নয়। বরং ব্যবসা হচ্ছে স্থায়ী অর্থ সমাগমের উৎস। তাই ব্যবসা শুরু করেই দ্রুত লাভ তুলে ধনী হয়ে যাবার চিন্তা পরিহার করুন। এতে আপনার ব্যবসা বিশ্বাসযোগ্যতা হারাতে পারে

উদাহরণস্বরুপ, ধরুন আপনি একটি ফাস্টফুডের ব্যবসা শুরু করেছেন যেখানে ১০০ টাকায় একটি বার্গার বিক্রি করছেন। প্রতিটি বার্গারে আপনার লাভ হচ্ছে ২০ টাকা। আপনার বার্গার ক্রেতারা পছন্দ করতে শুরু করলেই যদি আপনি এর দাম বৃদ্ধি করে দেন কিংবা আকারে ছোট করে দেন, তাহলে ক্রেতার সংখ্যা দ্রুতই কমে যাবে।

বরং এক্ষেত্রে আপনার চিন্তা হতে হবে দীর্ঘমেয়াদি। বার্গারটি জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করলে ক্রেতাদের বিশ্বাসের জায়গাটি আদায়ের জন্য আপনি বরং লাভ আরেকটু কমিয়ে বার্গারের মান বৃদ্ধি করুন। প্রতি বার্গারে ২০ টাকার বদলে ১৫ টাকা লাভ করুন এবং বার্গারে মাংসের পরিমাণ বৃদ্ধি করে দিন। এতে করে, বার্গার প্রতি লাভ কমে গেলেও ক্রেতার সংখ্যা গুণিতক হারে বাড়বে যা দীর্ঘমেয়াদে আপনার ব্যবসাকে সফল করবে।

বিনিয়োগ বন্ধ করবেন না

বিনিয়োগের পরিমাণ ধীরে ধীরে বাড়াতে হবে; Image Source: livemint.com

নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য এটি একটি মাথাব্যাথার কারণ। কেননা, একটি স্টার্টআপ শুরু করতে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়। তাই, ব্যবসা থেকে লাভ আসতে শুরু করলে তা ব্যবহার করতে দেরী করেন না অনেকেই। কিন্তু, এখানেই বিপত্তি ঘটে। একটি নতুন ব্যবসার প্রচুর বিনিয়োগ প্রয়োজন। ব্যবসা শুরুর অন্তত প্রথম কয়েকবছর লাভের চিন্তা পরিহার করে ব্যবসা থেকে আসা লাভটুকু ব্যবসাতেই পুনঃবিনিয়োগ করতে হবে

Written by MS Islam

বাংলাদেশে রিয়েল এস্টেট ব্যবসার হাল হকিকত

বাংলাদেশের শীর্ষ দশ ধনী ব্যবসায়ী